এক হাজার বছরের মধ্যেই মানুষকে পৃথিবী ছাড়তে হবে: স্টিফেন হকিং

image_print

ওয়াইডনিউজ ডেস্ক : আগামী এক হাজার বছরের মধ্যে পৃথিবী ধ্বংস হয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন বিশ্বখ্যাত পদার্থবিজ্ঞানী স্টিফেন হকিং।

জলবায়ু পরিবর্তন, পারমাণবিক বোমা এবং অতিমাত্রায় প্রযুক্তির অপপ্রয়োগ বাড়তে থাকায় এই আশঙ্কা জানিয়ে মানবজাতিকে নতুন কোনো আবাসভূমির খোঁজ করার তাগিদ দিয়েছেন এই বিজ্ঞানী।

অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি’র বিতর্ক সংসদ অক্সফোর্ড ইউনিয়নে দেয়া এক বক্তৃতায় এই আশঙ্কা প্রকাশ করেন হকিং। তিনি মনে করেন একমাত্র আবাসভূমি হিসেবে পৃথিবীর প্রতি নির্ভরশীল না হয়ে এখন থেকেই মানুষের অস্তিত্ব রক্ষার্থে অন্যান্য গ্রহে কলোনি গড়ে তোলা উচিৎ।

তবে খুব শীঘ্রই ভয়াবহ দুর্যোগে পৃথিবী ধ্বংস হচ্ছে না বলেই মনে করেন এই বিজ্ঞানী। পৃথিবী বসবাসের অনুপযোগী হতে এখনও ১ থেকে ১০ হাজার বছর লাগতে পারে বলে ধারণা তাঁর।

তাই হাতে থাকা সময়ের মধ্যেই টিকে থাকার বিকল্প খুঁজতে মহাকাশে অনুসন্ধান জোরদার করা উচিৎ বলে মনে করেন তিনি। হকিংয়ের এই ‘নতুন পৃথিবী’ গড়ে তোলার আহ্বানের আগেই অবশ্য মঙ্গলগ্রহে কলোনি গড়ার পথে অনেকদূর এগিয়েছে। আগামী শতকে মঙ্গলগ্রহে কলোনি গড়ার পরিকল্পনা নিয়ে ইতোমধ্যেই কাজ শুরু করেছে মহাকাশভিত্তিক মার্কিন প্রতিষ্ঠান স্পেস এক্স।

শুধু আশঙ্কার কথাই নয় নতুন আশায় এগিয়ে যাওয়ার প্রেরণা দিয়ে হকিং বলেন, ‘তারার দিকে তাকান। মাথা নিচু করে কেবল নিজের পা দেখলে চলবে না। কৌতুহলী হোন। জীবনে যতোই বিপত্তি আসুক কোনো না কোনো চেষ্টা আপনাকে সাফল্য এনে দেবেই। শুধু হাল ছেড়ে দেবেন না।’

image_print

1 Comment on "এক হাজার বছরের মধ্যেই মানুষকে পৃথিবী ছাড়তে হবে: স্টিফেন হকিং"

  1. বিষয়টি খুবই ‍উদ্বেগের।। আমরা মানূষ পৃথিবীতে আমাদের আচারণ ভীন গ্রহী এলীয়েনদের মতো। আমরা যা করি তা এই পৃথিবীর জলবায়ুর বিরুদ্ধে যায়।। আমাদের টেকনোলজি, আমাদের উন্নত চিন্তা ভাবনা, ভোগ-বিলাসী জীবন যাপন, প্রত্যেকটি ই এই পৃথিবীর উপরে ব্যাপক প্রভাব ফেলে।। পৃথিবীকে বাস যোগ্য করে তুলতে হলে আমাদেরকে এখনই সচেতনতার সাথে কাজ করতে হবে।। জলবায়ুর খারাপভাবে পরিবর্তন হয়ে যাওয়াটাকে রুখে দিতে হবে।।

    ব্লগটি ভাল লেগেছে।। লেখক সাহেবকে অসংখ্য ধন্যবাদ এমন একটা টপিক বেছে নেওয়ার জন্যে।।।

Leave a comment

Your email address will not be published.


*


Pin It on Pinterest